শিরোনাম
ইউনিয়ন আ’লীগের কমিটি নিয়ে এমপির গাড়ি দুই ঘন্টা অবরুদ্ধ মঙ্গলবার নব-নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরগণের শপথগ্রহণ কুমিল্লা সিটি নির্বাচন: মেয়র কাউন্সিলরদের শপথ ৫ জুলাই পাবনা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৪২ বোতল ফেন্সিডিল সহ ১জন আটক মেয়র আরফানুল হক রিফাতকে কুমিল্লা ক্রীড়া পরিবারের সংবর্ধনা কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার নারীদের স্বাবলম্বী করতে সুনেহেরা ক্রিয়েশন এর বিনামূল্যে ওয়ার্ক সপ ফরিদপুরে ৪০ মন ওজনের কালাপাহাড় নামক গরুর দাম হাঁকা হচ্ছে ২৫ লক্ষ টাকা  কুমিল্লায় ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা নারীর দায়ের করা মামলায় ধর্ষক গ্রেপ্তার  জামালপুর রেলওয়ে ওভারপাসে আরো ১৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিলেন প্রধানমন্ত্রী, ব্যয় দাড়ালো ৪৫০ কোটি টাকা ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে প্রথম রাজেন্দ্র কলেজের নাহনুল কবির নুয়েল
কুমিল্লার সদরের পাঁচথুবী ইউনিয়নে চলছে রমরমা মাদকের ব্যবসা

কুমিল্লার সদরের পাঁচথুবী ইউনিয়নে চলছে রমরমা মাদকের ব্যবসা

হাবিবুর রহমান মুন্না :

কুমিল্লা বাংলাদেশের একটি সীমান্তবর্তী জেলা শহর। সম্প্রতি কুমিল্লা জেলার সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার পাঁচথুবী ইউনিয়নের বেশ কিছু এলাকায় দিবালোকেই চলছে মাদক ব্যবসা। উল্লেখ্য যে, সুবর্ণপুর, বাড়াইপুর, পশ্চিম মাঝিগাছা,মুন্সীর বাজার, কোটেশ্বর, বাঘবের,বিষ্ণুপুর,  নিশ্চিন্তপুর, জালুয়াপাড়া, ইউনিয়ন পরিষদ মাঠ, শাহপুর, গোলাবাড়ি এবং শালধর, ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা বিধায় মাদকের প্রবণতা দিন দিন বেড়েই চলেছে।
স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে থেকে জানা যায় এই সব সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে ফেন্সিডিল, ইয়াবা, হেরোইন গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের সামনেই প্রকাশ্য দিবালোকেই বেচাকেনা করে যাচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীরা।
এসব চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীদের প্রকাশ্য বিচরণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী। কেউ কিছু বললে তাদের ওপর নেমে আসে খড়গ।
এলাকাবাসী ও স্থানীয় বিভিন্ন সূত্র  জানায়, সুবর্ণপুর, বাড়াইপুর, পশ্চিম মাঝিগাছা, কোটেশ্বর, বাঘবের, নিশ্চিন্তপুর, জালুয়াপাড়া, শাহপুর, গোলাবাড়ি এবং শালধর ব্রীজের কিছু অংশ মাদক সেবীদের নিরাপদ স্থান হওয়ায় দিনরাত নির্বিঘ্নে চলে তাদের ফেনসিডিল, ইয়াবা, গাঁজা ও হেরোইনসহ বিভিন্ন ধরণের মাদক সেবনের কাজ।
 তবে মাদক সেবীদের আনাগোনা বেশী লক্ষ্য করা যায় বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত। বিকেলের পর থেকে শুরু হয় এই সব এলাকার উপর দিয়ে শত শত  মোটরসাইকেল, সিএনজি চলাচল। রাত যতবাড়ে মাদক সেবীদের জন্য এই সব এলাকা পরিণত হয় অভয়ারণ্য।
মাদকসেবী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানান, সিমান্তবর্তী বর্ডার গার্ড পাহাড়া দেওয়া বাংলাদেশের কর্মরত সদস্যদের কে ৫০-১০০ টাকা দিলেই তারা ইন্ডিয়া বর্ডার ঠুকতে দেই এবং মাদকসেবন গ্রহণ করা শেষ হলে দ্রুত বাহির হওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন ।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার অনেকে জানিয়েছেন, এই সব এলাকার বেশ কিছু দোকানপাটেও চলে মাদকের ব্যবসা। আর ওইসব দোকান থেকে দূর দূরান্তের আসা বিভিন্ন মাদকসেবী ইয়াবা, ফেনসিডিল ও হেরোইন সেবন ও ক্রয় করে থাকে।
আর এসব মাদক ব্যবসায়ীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে থকেন এলাকার বেশ কিছু  প্রভাবশালী মহলের। যাদের ছত্রছায়ায় মাদক ব্যবসায়ীরা অবাঁধে মাদক ব্যবসা চালালেও এলাকার সাধারন মানুষ তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পায় না।
নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী একজন সচেতন ব্যক্তি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এসব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে জানানোর পরও অজ্ঞাত কারণে এখন পর্যন্ত তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবন্থা গ্রহণ করা হয়নি।করছে মাদকের আড্ডা গুলো।প্রশাসন কিছু ব্যবসায়ীদের ধরলে ও কিছু দিন পর জামিনে বাহির হয়ে এসে নিজ এলাকায় শুরু করে মাদক ব্যবসা।
 তাই বন্ধও হচ্ছে না তাদের মাদক ব্যবসা।
এসব মাদকের হাট বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনসহ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ভূক্তভোগী পাঁচথুবী ইউনিয়নের এলাকাবাসী।
মাদক ব্যবসা বন্ধে ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে কি না এ বিষয়ে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) কুমিল্লা মোঃ সোহান সরকার (পিপিএম) জানান, মাদক নিয়ন্ত্রণে আমরা প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছি। আমরা প্রতিদিন মাদকদ্রব্যসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক করছি। যদি আমাদেরকে কেউ সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয় তাহলে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY SmartHostBD.com