শিরোনাম
পাবনা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ৪২ বোতল ফেন্সিডিল সহ ১জন আটক মেয়র আরফানুল হক রিফাতকে কুমিল্লা ক্রীড়া পরিবারের সংবর্ধনা কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার নারীদের স্বাবলম্বী করতে সুনেহেরা ক্রিয়েশন এর বিনামূল্যে ওয়ার্ক সপ ফরিদপুরে ৪০ মন ওজনের কালাপাহাড় নামক গরুর দাম হাঁকা হচ্ছে ২৫ লক্ষ টাকা  কুমিল্লায় ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা নারীর দায়ের করা মামলায় ধর্ষক গ্রেপ্তার  জামালপুর রেলওয়ে ওভারপাসে আরো ১৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিলেন প্রধানমন্ত্রী, ব্যয় দাড়ালো ৪৫০ কোটি টাকা ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে প্রথম রাজেন্দ্র কলেজের নাহনুল কবির নুয়েল দেশের গন্ডি পাড়ি দিয়ে আন্তর্জাতিক পরিসরে সম্মানিত তাহসীন বাহার মাদকাসক্তি রোধে পারিবারিক বন্ধন দৃঢ় করতে হবে: জেলা প্রশাসক কুসিক নির্বাচনের বিজয়ী প্রার্থীদের গেজেট প্রকাশ
দেবীদ্বার ইউসুফপুর ইউনিয়নের শিবপুরের সংঘর্ষে মূল ইন্দন দাতা মোঃ দেলোয়ার হোসেন দেলু এলাকাবাসীর অভিযোগ

দেবীদ্বার ইউসুফপুর ইউনিয়নের শিবপুরের সংঘর্ষে মূল ইন্দন দাতা মোঃ দেলোয়ার হোসেন দেলু এলাকাবাসীর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলা ২নং ইউসুফপুর ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামে নির্বাচনে সহিংসতা নিয়ে প্রথম অবস্থায় আবুল কালাম আজাদ মেম্বার আনোয়ার হোসেন মেম্বারের নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করে তারপরে আনোয়ার মেম্বারের জনগনরা আবুল কালাম আজাদ মেম্বারের বাড়িতে গিয়ে আবুল কালাম আজাদ মেম্বার সহ তার দুই ভাইকে কুপিয়ে জখম করে ।পরে পুলিশ প্রশাসন ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত হয়ে তাদের মারামারি নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়।পরে দুই দলকে সমঝোতায় আসতে মিটিং করে দুই পক্ষের সদস্যদের নিয়ে । মিটিং করে দুই পক্ষ বলেন আমরা সমাধানে যাবো এই কথা বলে আবারও আজ রাতে ৮ঘটিকার সময় মারামারি হানাহানি কাটাকাটি হয়। একই পরিবারের ৬জন আহত হয় । মোঃ দেলোয়ার হোসেন একজন হাফ মাডার মামলার আসামি,মামলা নং ০৫ তাং ৯/২/২০২২ইং ধারা ১৪৩/১৪৭/১৪৮/১৪৯/৪৪৭/৪৪৮/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৫৪/ও ৫০৬ ধারা মামলা করা হয় । শিবপুর গ্রামে ঘটনার মূল ইন্দন দাতা হচ্ছে লিয়াকত আলী মিন্টুর ছেলে মোঃ দেলোয়ার হোসেন বিপক্ষে লোক জনকে লাঠি দিয়ে মারদুর করে জখম করে। অনেক জনের মাথা রক্তাক্ত হয়ে হসপিটালে ভর্তি হয় তার পাশাপাশি আরো কিছু সংখ্যক মা-বোনদের ওপর লাঠিচার্জ করে। দেলোয়ার হোসেন একজন পেশাগত নোয়াখালী মাইজদি স্কুলের শিক্ষক। তিনি শিবপুর গ্রামে মারামারি হানাহানি কাটাকাটি মূল ইন্দন দাতা।তার কারনে শিবপুর গ্রামে একটার পর একটা ঘটনা ঘটে যাচ্ছে ।তিনি বিভিন্ন মানুষের সাথে সেলফি তুলে দালালি করে। তার পাশাপাশি গ্রামের অনেক মানুষের কাছ থেকে জানতে পারলাম গ্রামে যত লুটপাট হয় তার কথা শোনে লুটপাট ও মারামারি হানাহানি কাটাকাটি হয়।

 

আরো বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায় শিবপুরের কিছু মানুষ নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক মোঃ দেলোয়ার হোসেন একজন শিক্ষিত ছেলে তার মনের মধ্যে কি করে আসে যে মারামারি কথা তিনি বলেন দেবীদ্বার ইউসুফপুর ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামে আজীবন মারামারি থাকবে এটা তাদের ছেলে সন্তান হবে মারামারি করবে । গ্রামের কিছু ব্যাক্তির কথায় বুঝা যায় এখনকার মারামারির মূল ইন্দন দাতা হচ্ছে লিয়াকত আলী মিন্টুর ছেলে মোঃ দেলোয়ার হোসেন। দেলোয়ার হোসেন এলাকায় এসে মিটিং করে সেল্টার দিয়ে যায় । এলাকার মানুষ মনে একজন শিক্ষক হয়ে গ্রামের সহিংসতা করা এটা তার কোন কাম্য না।গ্রাম বাসি বলেন দেলোয়ার হোসেনকে কোন এজেন্ডা সেল্টার দেয় আমরা গ্রামের শান্তি চাই আর কোন মারামারি হানাহানি কাটাকাটি আমাদের শিবপুর গ্রামে চাই না। সবাই মিলে মিশে একাকায় বসবাস করতে চাই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY SmartHostBD.com